1. admin@dailyhumanrightsnews24.com : admin :
শনিবার, ১৩ এপ্রিল ২০২৪, ০৭:০৫ অপরাহ্ন
সংবাদ শিরোনাম :
কলকলিয়ায় বিএনপি ও অঙ্গ সহযোগী সংগঠন এর ঈদ পূর্ণমিলনী অনুষ্ঠিত ইবির নতুন ছাত্র উপদেষ্টা অধ্যাপক ড. বাকী বিল্লাহ বিকুল পঞ্চগড়ে ঘরে ঢুকে, প্রেমিকাকে গলা কেটে হত্যা শান্তিপূর্ণ পরিবেশে জগন্নাথপুরে ঈদুল ফিতরের জামাত অনুষ্ঠিত ইনায়াহ ওয়েলফেয়ার ট্রাস্টের পক্ষ থেকে হত-দরিদ্র ও বেদে জনগোষ্ঠীর মানুষের মধ্যে ইফতার বিতরণ ধর্মপাশা উপজেলা বাসিকে ঈদের অগ্রিম শুভেচ্ছা জানিয়েছেন চেয়ারম্যান পদপ্রার্থী মোঃ আবুল বাশার নারীর টানে বাড়ি ফেরা মানুষের ঢল নড়াইলের পল্লীতে ১ কিশোরীকে ধর্ষণ ও নির্যাতনের অভিযোগ বেসামরিক সেনা কর্মচারীর বিরুদ্ধে। ঈদের দিন সেমাই-চেনি খাবে এটা ভেবেই খুশি তারা গোপালগঞ্জে ঈদুল ফিতরের নামাজের প্রধান জামাত অনুষ্ঠিত হবে

জগন্নাথপুরে কোরবানির হাটে পশু বেশী ক্রেতা কম, দেশী গরুর চাহিদা বেশী

  • আপডেট সময় : শুক্রবার, ২৩ জুন, ২০২৩
  • ১০৩ বার পঠিত

হুমায়ূন কবীর ফরীদি, স্টাফ রিপোর্টারঃ

পবিত্র ঈদুল আযহাকে সামনে রেখে জগন্নাথপুরে কোরবানির পশুর হাট জমজমাট হয়ে উঠেছে। তবে হাটে পশু বেশী ক্রেতা কম। দেশী গরুর চাহিদা বেশী। ক্রেতারা বেশীরভাগই কোরবানির পশু ক্রয় করেছেন। বাড়ী বাড়ী।
আর মাত্র কয়েকটি দিন বাকী। চলতি জুন মাসের ২৯ তারিখ রোজ বৃহস্পতিবার মুসলিম উম্মাহর প্রধান ধর্মীয় উৎসব পবিত্র ঈদুল আযহা। এই ঈদকে লক্ষ করে সুনামগঞ্জ জেলার প্রবাসী অধ্যুষিত জগন্নাথপুর উপজেলার স্থায়ী ও অস্থায়ী পশুর হাট গুলো জমজমাট হয়ে উঠেছে। ২৩ শে জুন রোজ শুক্রবার সরেজমিনে ঘুরে দেখা যায় ও জানাযায়, উপজেলায় স্থায়ী পশুর হাট রসুলগঞ্জ বাজার ও রানীগঞ্জ বাজার হলেও পবিত্র ঈদুল আযহা উপলক্ষে সরকারি অনুমোদন সাপেক্ষে উপজেলার বিভিন্ন হাট-বাজারে এবং গুরুত্বপূর্ণ পয়েন্টে আরো ১৩ টি অস্থায়ী পশুর হাট বসেছে। এই সকল হাট গুলোতে পশুর সংখ্যা হাটবারে বেশী হলেও ক্রেতা সাধারনের সংখ্যা তুলনামূলক ভাবে কম হচ্ছেন। ২৩ শে জুন উপজেলার ঐতিহ্যবাহী প্রাচীনতম পশুর হাটে বিপুল সংখ্যক পশু উঠলেও ক্রেতা সংখ্যা নেই বললেই চলে। কোরবানিকারী ক্রেতাদের মধ্যে শতকরা পাঁচজন গরু,ছাগল ও ভেড়া ক্রয় করলেও অন্যরা দামদর যাচাই বাছাই করে বাড়ী ফিরে যাচ্ছেন। অনেকেই উপজেলার গ্রামাঞ্চলে অবস্থিত পশুর খামার থেকে কোরবানির পশু ক্রয় করবেন বলে জানা গেছে। আর দেশী জাতীয় পশুর চাহিদা ক্রেতাদের মধ্যে রয়েছে।
এব্যাপারে পশু বিক্রেতা রাজমত ব্যাপারী, সুন, লাল মিয়া ও আব্দুল মমিন সহ একাধিক ব্যবসায়ী একান্ত আলাপকালে বলেন , অন্য বছরের তুলনায় এবারের হাটে বেচা- বিক্রি কম হচ্ছে। দেশী প্রজাতির পশুর প্রতি ক্রেতাদের আগ্রহ বেশী। দামও বেশী। এক প্রশ্নের জবাবে তারা আরো বলেন, ক্রেতা সাধারন গরুর দামদর জিজ্ঞাসা করে চলে যাচ্ছেন। ৩৫ থেকে ৩ লাখ টাকা মূল্যের গরু, ১৫/২০ হাজার টাকা মূল্যের ছাগল ও ১২/১৪ হাজার টাকা মূল্যের ভেড়া বাজারে আছে। শতকে ১০/১২ জন পশু ক্রয় করছেন। দেখা যাক কি হয়? ঈদেরতো আরও কয়েক দিন বাকী আছে।
এব্যাপারে হাটে আসা বাবুল মিয়া,আব্দুল আলী ও রিফাত মিয়া সহ একাধিক ক্রেতা তাদের অভিপ্রায় ব্যাক্ত করতে গিয়ে বলেন, হাটে বেশী পশু থাকলেও চাহিদা অনুযায়ী পাচ্ছিনা। তাও দাম অনেক বেশী। দাম দরে হয়নি তাই গরু- ছাগল অর্থাৎ কোরবানির পশুর ক্রয় করা হয়নি। বিশেষ করে দামদর যাচাই বাছাই করলাম। গ্রামাঞ্চলেই কোরবানির জন্য গরু কিংবা ছাগল ক্রয় করব। এক প্রশ্নের জবাবে তারা আরো বলেন, গ্রামে কোরবানির পশু কিনলে সুবিধা বেশী। দামদর ঠিক করে গরুর মালিক কিংবা খামারের মালিকগনকে মূল্যের চেয়ে হাজার দেড়েক টাকা বেশি দিলে খামারে কিংবা মালিকের বাড়ীতে কোরবানির পশু রাখা যায়। এবং ঈদের আগের দিন নিজ বাড়ীতে এনে কোরবানি দেওয়া যায়। এতে বাড়তি ঝামেলা পোহাতে হয়না। তার উপর দেশী খাবারে বেড়ে ওঠা পশু পাওয়া যায়।

সংবাদটি শেয়ার করুন :
এ জাতীয় আরও খবর

ফেসবুকে আমরা

© স্বত্ব সংরক্ষিত © ২০১৮ দৈনিক মানবাধিকার সংবাদ
Theme Customized By Shakil IT Park