1. admin@dailyhumanrightsnews24.com : admin :
সোমবার, ২৬ ফেব্রুয়ারী ২০২৪, ১০:১৫ পূর্বাহ্ন
সংবাদ শিরোনাম :
ধর্মপাশায় দিনব্যাপী কৃষক প্রশিক্ষণ অনুষ্ঠিত নড়াইলে জাপান-বাংলাদেশ গ্লোবাল নার্সিং কলেজে নির্মাণের শুভ উদ্বোধন। অধ্যক্ষের অনিয়ম-দুর্নীতির প্রতিবাদে বিক্ষোভে নেমেছে শিক্ষার্থীরা তিতাসে যুগান্তরের ২৫ তম প্রতিষ্ঠা বার্ষিকী পালিত নড়াইলে ১ মাদক কারবারী গ্রেফতার। ইবি ছাত্রলীগ কর্মীর বিরুদ্ধে গলাটিপে হত্যা চেষ্টার অভিযোগ  সন্ত্রাস ও উগ্রবাদ নিরসনে ইসলামিক ফাউণ্ডেশন কর্তৃক প্রশিক্ষণ কর্মশালা।  রাজশাহীর শিবগঞ্জে গ্যাস সিলিন্ডারে মাদক বহনের সময় মাদক সহ ০১জন র‌্যাব-৫ এর হাতে গ্রেপ্তার  শান্তিগঞ্জে এম এ মান্নান প্রাথমিক মেধা বৃত্তি পরীক্ষার পুরস্কার বিতরণী অনুষ্ঠান অনুষ্ঠিত গোপালগঞ্জের  রাবেয়া-আলী গার্লস স্কুল এন্ড কলেজের বার্ষিক ক্রীড়া প্রতিযোগিতা ও পুরস্কার বিতরণ

গোপালগঞ্জে গ্যাস সরবরাহে ১১০ কিলোমিটার পাইপলাইন হবে

  • আপডেট সময় : রবিবার, ২৩ জুলাই, ২০২৩
  • ৮০ বার পঠিত

মোঃ শিহাব উদ্দিন গোপালগঞ্জ

গোপালগঞ্জে গ্যাস দিতে ১১০ কিলোমিটার পাইপলাইন নির্মাণ করতে চায় সরকার। লাঙ্গলবন্দ থেকে গোপালগঞ্জ পর্যন্ত এই পাইপলাইনের সম্ভাব্যতা জরিপের কাজ করছে গ্যাস ট্রান্সমিশন কোম্পানি (জিটিসিএল)। প্রাথমিকভাবে ধারণা করা হচ্ছে পাইপলাইনটির নির্মাণ ব্যয় হবে ২ হাজার ৩৬০ কোটি টাকা।

সংশ্লিষ্টরা বলছেন, পদ্মা সেতুতে এ ধরনের পাইপলাইন নির্মাণ কাজ সহজ হবে। কারণ, আগে থেকেই সেখানে গ্যাস পাইপলাইন স্থাপন করা আছে। এই পাইপলাইনের সঙ্গে শুধু দুই প্রান্তকে জুড়ে দেওয়া হবে।জিটিসিএল পাইপলাইন নির্মাণের মূল উদ্দেশ্য হিসেবে বলা হচ্ছে, দেশের দক্ষিণ-পশ্চিমাঞ্চলে গ্যাস সরবরাহের জন্য গ্যাস সঞ্চালন অবকাঠামো নির্মাণ করা হচ্ছে। দেশের দক্ষিণ-পশ্চিমাঞ্চলে স্থাপিতব্য বিভিন্ন গ্যাস ভিত্তিক বিদ্যুৎ কেন্দ্র, সার কারখানা ও বাণিজ্যিক ইউনিটে গ্যাস সরবরাহ করা ছাড়াও জ্বালানি সরবরাহের মাধ্যমে দেশের সুষম উন্নয়ন নিশ্চিত করবে বলে আশা করা হচ্ছে।

পাইপলাইনটি হবে ৩৬ ইঞ্চি ব্যাসের। প্রকল্পের ফিজিবিলিটি স্টাডির কাজ চলছে বলে জিটিসিএল এর একজন কর্মকর্তা জানান। তিনি বলেন, দক্ষিণ পশ্চিমাঞ্চলে খুলনা পর্যন্ত আগে থেকে একটি গ্যাস পাইপলাইন রয়েছে। কিন্তু পাইপলাইনটি পাবনা, ঈশ্বরদী, কুষ্টিয়া ঘুরে খুলনা গেছে। এই পাইপলাইন দিয়ে গ্যাস সরবরাহ বেশ কঠিন। তিনি বলেন, পদ্মা সেতু নির্মাণ হওয়াতে পাইপলাইন নির্মাণ করা এখন খুব সহজ। কারণ পদ্মা সেতুতে আগে থেকেই গ্যাস পাইপলাইন বসানো রয়েছে।

সূত্রমতে, পদ্মা সেতুর ৬ দশমিক ১৫ কিলোমিটার অংশে ৫৩১টি পাইপ বসানো হয়েছে। পাইপগুলোর দৈর্ঘ্য ১২ মিটার, ব্যাস ৭৬০ মিলিমিটার, ওজন ৫ দশমিক ৬৭ টন। এই পাইপলাইন দিয়ে দক্ষিণ পশ্চিমাঞ্চলে গ্যাস সরবরাহের পরিকল্পনা রয়েছে সরকারের।

জিটিসিএল বলছে, এছাড়া গোপালগঞ্জ থেকে আরও একটি পাইপলাইন নির্মাণ করা হবে। এই পাইপলাইনটি হবে খুলনা পর্যন্ত। দক্ষিণ-পশ্চিমাঞ্চলে স্থাপিতব্য বিভিন্ন গ্যাস ভিত্তিক বিদ্যুৎ কেন্দ্র, সার কারখানা ও বাণিজ্যিক ইউনিটে গ্যাস সরবরাহ করা এবং জ্বালানি সরবরাহের মাধ্যমে দেশের সুষম উন্নয়ন নিশ্চিত করার জন্য এই উদ্যোগ নেওয়া হয়েছে।

পাইপলাইনটি হবে ৩০ কিলোমিটার। ৪২ ইঞ্চি ব্যাসের এই পাইপলাইনটি স্থাপনে মোট ব্যয় হবে ১ হাজার কোটি টাকা।

জিটিসিএল সূত্র বলছে, পরিকল্পনা অনুযায়ী ২০২৬ সালের মধ্যে এই পাইপলাইন দুটিরই নির্মাণ কাজ শেষ করতে চায় জ্বালানি বিভাগ। দক্ষিণ পশ্চিমাঞ্চলের মানুষের দীর্ঘদিনের দাবি ওই অঞ্চলে গ্যাস সরবরাহের। পদ্মা সেতু নির্মাণে ওই এলাকার যে অর্থনৈতিক উন্নয়ন হচ্ছে জ্বালানি সরবরাহ বৃদ্ধি তাতে গতি আনবে বলে মনে করা হচ্ছে।

জিটিসিএল সূত্র আরও বলছে, সরকার খুলনা এবং বরিশাল অঞ্চলে গ্যাস সরবরাহের জন্য গোপালগঞ্জে একটি হাব করছে। এখান থেকে খুলনা এবং বরিশাল অঞ্চলে পৃথক পাইপলাইন যাবে।

সংবাদটি শেয়ার করুন :
এ জাতীয় আরও খবর

ফেসবুকে আমরা

© স্বত্ব সংরক্ষিত © ২০১৮ দৈনিক মানবাধিকার সংবাদ
Theme Customized By Shakil IT Park