1. admin@dailyhumanrightsnews24.com : admin :
শনিবার, ০২ মার্চ ২০২৪, ০৬:৩৫ পূর্বাহ্ন
সংবাদ শিরোনাম :
অপহরণকারী মানিক কে জয়পুরহাটের কাশিয়াবাড়ি থেকে গ্রেফতার ও ভিকটিম রায়তা কে উদ্ধার করেছে র‌্যাব গোপালগঞ্জে পৌর আওয়ামীলীগের সাধারন সম্পাদকের জন্ম বার্ষীকি পালন। লোহাগড়ায় ৮৫ পিচ ইয়াবাসহ তেলকাড়ার রাকিব গ্রেফতার। জগন্নাথপুরে এক শিক্ষক এর ঘুষিতে অপর শিক্ষক আহত, একজন জেল হাজতে সুনামগঞ্জ জেলার ৪০ বছর পূর্তি উদযাপন উপলক্ষে র‌্যালী ও আলোচনা অনুষ্ঠিত।  বিনয়বাঁশী শিল্পীগোষ্ঠী কর্তৃক একুশের বইমেলা পরিদর্শন জগন্নাথপুরে ফুটবল টুর্নামেন্টে “পাড়ারগাঁও সোনার বাংলা স্পোর্টিং ক্লাব” চ্যাম্পিয়ন ধর্মপাশা খলাপাড়া গ্রামের লাকি আক্তার ব্রেস্ট ক্যান্সারে আক্রান্ত রোগীর পাশে কিয়ার এন্ড  সাইন ফাউন্ডেশন।  দেওয়ানগঞ্জে ‘দৈনিক সকালের সময়’ পত্রিকার প্রতিষ্ঠাবার্ষিকী পালন পিপিএম পদক পেলেন গোপালগঞ্জের পুলিশ সুপার আল-বেলী আফিফা

বিবাহিত ও একাধিক মামলার আসামীকে ছাত্রলীগের সভাপতি করার অভিযোগ

  • আপডেট সময় : বুধবার, ২৭ সেপ্টেম্বর, ২০২৩
  • ৭৮ বার পঠিত

উমর ফারুক পঞ্চগড় জেলা প্রতিনিধি:
পঞ্চগড়ে বোদা উপজেলার বেংহারী বনগ্রাম ইউনিয়ন ছাত্রলীগের আংশিক কমিটি সম্প্রতি অনুমোদন দিয়েছে উপজেলা কমিটি। ২৩ সেপ্টেম্বর বেংহারী বনগ্রাম ইউনিয়ন ছাত্রলীগের আংশিক কমিটি অনুমোদন দেয় বোদা উপজেলা ছাত্রলীগের সভাপতি রুবায়েদ হুসেন সবুজ ও সাধারণ সম্পাদক আনজাম পিয়াল। ওই তালিকায় সভাপতি, সহসভাপতি, সাধারণ সম্পাদক, যুগ্ম সাধারণ সম্পাদক ও সাংগঠনিক সম্পাদক পদে ১১ জনের নাম উল্লেখ আংশিক কমিটি ঘোষণা করা হয়। সভাপতি পদে মোতাহার হোসেন, সহসভাপতি পদে রায়হানুল ইসলাম মানিক, অন্তর চন্দ্র বর্মন ও আরিফুজ্জামান আরিফ, সাধারণ সম্পাদক পদে আল মামুন শাহরুখ, যুগ্ম সাধারণ সম্পাদক শহিদুল ইসলাম, অমূল্য চন্দ্র ও ওমর ফারুক এবং সাংগঠনিক সম্পাদক তুহিনুল ইসলাম তুহিন, শাহিবুর রহমান ও মেহেদী হাসানকে রাখা হয়েছে। ওই কমিটির সভাপতি করা হয়েছে মোতাহার হোসেন নামে এক তরুণকে। তবে তিনি বিবাহিত এবং তার বিরুদ্ধে আহমদিয়া সম্প্রদায়ের উপর হামলা ও ঘরবাড়িতে অগ্নিসংযোগের একাধিক মামলা রয়েছে বলে অভিযোগ উঠেছে। তার বিবাহের একটি কাবিননামাও ছড়িয়ে পড়েছে বিভিন্নভাবে। বিবাহিত একজনকে সভাপতি দায়িত্ব দেয়ায় প্রশ্ন তুলেছেন ছাত্রলীগের তৃণমূল নেতারা। তবে বিবাহের অভিযোগ অস্বীকার করেছেন ছাত্রলীগের সভাপতি পদ পাওয়া মোতাহার।
নাম প্রকাশে অনিচ্ছুক ওই ইউনিয়নের এক ছাত্রলীগ নেতা বলেন, মোতাহার যে বিয়ে করেছে এটা এলাকার সবাই জানে। আসলে কিভাবে কমিটি করা হয়েছে তা উপজেলা কমিটির নেতারাই ভালো বলতে পারবেন। শোনা যাচ্ছে অনেক টাকার লেনদেন হয়েছে।
নব ঘোষিত কমিটির সহসভাপতি অন্তর চন্দ্র বর্মন বলেন, আমি সাধারণ সম্পাদক পদের জন্য আবেদন করেছিলাম আর যাকে সাধারণ সম্পাদক করা হয়েছে তিনি আবেদন করেছিলেন সভাপতি পদের জন্য। কিন্তু কোন নিয়মে তাকে সাধারণ সম্পাদক ও আমাকে সহসভাপতি করা হয়েছে বুঝতে পারছি না। এছাড়া যাকে সভাপতি করা হয়েছে তার বিরুদ্ধে অনেক রকম কথা শোনা যাচ্ছে। বিষয়টি নিয়ে আমরাও বিব্রত।
মোতাহার হোসেন বলেন, আমি দীর্ঘদিন ধরে ছাত্রলীগের কর্মী হিসেবে কাজ করে আসছি। এলাকার আমার জনপ্রিয়তা রয়েছে। বাবার কাছ থেকে নেয়া নিজের পকেটের টাকা খরচ করে অনেক দলীয় কর্মসূচি ও মানবিক কাজ করেছি। আমার কাজ ও জনপ্রিয়তাকে উপজেলা কমিটি মূল্যায়ন করে আমাকে সভাপতি করেছে। আমার বিয়ের বিষয়টি ভুয়া। আর আহমদিয়া সম্প্রদায়ের উপর হামলার ঘটনায় আমার বাবার ব্যবসায়ীক প্রতিপক্ষরা আমার বিরুদ্ধে মামলা করেছে। তবে পুলিশ বাদী কোন মামলায় আমাকে আসামী করা হয় নি। মূলত আমাকে প্রতিহত করার জন্যই একটি পক্ষ বিভ্রান্তি ছড়াচ্ছে।
বোদা উপজেলা ছাত্রলীগের সাধারণ সম্পাদক আনজাম পিয়াল বলেন, কমিটি গঠনের সময় তথ্য গোপন করা হয়েছিল। তবে যার বিরুদ্ধে অভিযোগ তিনি বলছেন কাবিননামাটি এডিট করা। আমরা খোঁজ খবর নিচ্ছি। যদি বিবাহের বিষয়টি সত্যি প্রমাণিত হয় তাহলে ছাত্রলীগের গঠনতন্ত্র অনুযায়ী তাকে কমিটিতে রাখার সুযোগ নেই। এমনটি হলে ১ নম্বর সহসভাপতিকে ভারপ্রাপ্ত সভাপতির দায়িত্ব দেয়া হবে।

সংবাদটি শেয়ার করুন :
এ জাতীয় আরও খবর

ফেসবুকে আমরা

© স্বত্ব সংরক্ষিত © ২০১৮ দৈনিক মানবাধিকার সংবাদ
Theme Customized By Shakil IT Park