1. admin@dailyhumanrightsnews24.com : admin :
সোমবার, ২৬ ফেব্রুয়ারী ২০২৪, ০৯:৫২ পূর্বাহ্ন
সংবাদ শিরোনাম :
ধর্মপাশায় দিনব্যাপী কৃষক প্রশিক্ষণ অনুষ্ঠিত নড়াইলে জাপান-বাংলাদেশ গ্লোবাল নার্সিং কলেজে নির্মাণের শুভ উদ্বোধন। অধ্যক্ষের অনিয়ম-দুর্নীতির প্রতিবাদে বিক্ষোভে নেমেছে শিক্ষার্থীরা তিতাসে যুগান্তরের ২৫ তম প্রতিষ্ঠা বার্ষিকী পালিত নড়াইলে ১ মাদক কারবারী গ্রেফতার। ইবি ছাত্রলীগ কর্মীর বিরুদ্ধে গলাটিপে হত্যা চেষ্টার অভিযোগ  সন্ত্রাস ও উগ্রবাদ নিরসনে ইসলামিক ফাউণ্ডেশন কর্তৃক প্রশিক্ষণ কর্মশালা।  রাজশাহীর শিবগঞ্জে গ্যাস সিলিন্ডারে মাদক বহনের সময় মাদক সহ ০১জন র‌্যাব-৫ এর হাতে গ্রেপ্তার  শান্তিগঞ্জে এম এ মান্নান প্রাথমিক মেধা বৃত্তি পরীক্ষার পুরস্কার বিতরণী অনুষ্ঠান অনুষ্ঠিত গোপালগঞ্জের  রাবেয়া-আলী গার্লস স্কুল এন্ড কলেজের বার্ষিক ক্রীড়া প্রতিযোগিতা ও পুরস্কার বিতরণ

ধর্মপাশা বন বিভাগের অনুমতি  ছাড়া  ঠিকাদার কর্তৃক  সরকারি গাছ কর্তন। 

  • আপডেট সময় : বুধবার, ৮ নভেম্বর, ২০২৩
  • ১০১ বার পঠিত
রবি মিয়া ধর্মপাশা সুনামগঞ্জ ( প্রতিনিধি) ধর্মপাশা উপজেলার বাদশাগঞ্জ বাজারের  উত্তরপাশে বৌলাম গ্রামের সামনে  ৭ নভেম্বর  রোজ  মঙ্গলবার   সকাল ১০ ঘটিকায়  ঠিকাদার কর্তৃক  রাস্তার পাশের সরকারি গাছ কর্তনের ঘটনা ঘটে ।  উক্ত অভিযোগের ভিত্তিতে সরেজমিনে দেখা যায়, বন বিভাগ  এবং  স্থানীয়  বনবিভাগ সমিতির  কাউকে অবগত না করেই গাছগুলো কর্তন করা হচ্ছে।
এ ব্যাপারে স্থানীয় বন বিভাগ সমিতির  সভাপতি প্রাক্তন চেয়ারম্যান সিরাজুল ইসলামের কাছে জানতে চাইলে তিনি বলেন,  উক্ত গাছ কাটার ব্যাপারে  সংশ্লিষ্ট ঠিকাদার আমাকে  এবং আমাদের সমিতির কাউকে কিছু  জানায়নি ।
স্থানীয় সূত্রে জানা যায়,  একটি ভাঙা বেইলি ব্রিজ  পুনঃনির্মাণের জন্য  সংশ্লিষ্ট ঠিকাদার  কিছুদিনের মধ্যেই কাজ শুরু করার কথা রয়েছে। বিকল্প রাস্তা তৈরি করার জন্য  রাস্তার পাশের গাছগুলো কর্তন করা হচ্ছে।
এ ব্যাপারে বন বিভাগের ভারপ্রাপ্ত  কর্মকর্তা সুনামগঞ্জ এস এফ এন টি সি দ্বীন ইসলাম  সাথে মুঠোফোনে যোগাযোগ করলে তিনি জানান , বৌলাম গ্রামের সামনে  রাস্তার পাশের  সরকারি গাছ কর্তনের ব্যাপারে  উক্ত টিকাদার আমাদের কাছ থেকে অনুমতি চাইনি।
তিনি আরো জাননন, বন বিভাগের অনুমতি ছাড়া কোন ব্যক্তি বা প্রতিষ্ঠান  সরকারী গাছ  কর্তন করতে পারে না।
এ ব্যাপারে বন বিভাগের ওই কর্মকর্তা সাথে সাথে ফরেস্টার  আনিসুর রহমান কে  পাঠিয়ে  ঘটনার সত্যতা নিশ্চিত করেন এবং গাছগুলো জব্দ  করে  আইনী ব্যবস্থার প্রস্তুতি নিচ্ছেন বলে আমাদেরকে জানান ।
উক্ত ঘটনা সম্পর্কে   সংশ্লিষ্ট ঠিকাদার( মৃনাল কান্তি)  কাছে মুঠোফোনে উক্ত অভিযোগ সম্পর্কে জানতে চাইলে  তিনি  উত্তেজিত  হয়ে বলেন, “এগুলো বনবিভাগের গাছ না। বনবিভাগকে জানাতে চাইলে আপনি গিয়ে জানান। আপনার তো আমাকে ফোন দেওয়ার  রাইট নেই। আমি নেত্রকোনা জেলা আওয়ামী লীগের   যুগ্ন সাধারণ সম্পাদক।  আপনি আমাকে জিজ্ঞাসা করার কে ? রাস্তার পাশে গাছ কাটলে ফরেস্ট অফিসারদের অনুমতি লাগে না।”
এ প্রতিবেদন লেখার আগমুহূর্ত গাছকাটা অব্যাহত রয়েছে ।
সংবাদটি শেয়ার করুন :
এ জাতীয় আরও খবর

ফেসবুকে আমরা

© স্বত্ব সংরক্ষিত © ২০১৮ দৈনিক মানবাধিকার সংবাদ
Theme Customized By Shakil IT Park